Saturday , December 10 2016
সদ্য প্রাপ্ত
Home / Slider / হোয়াটসঅ্যাপ-ফেসবুকে ভয়েস কল বন্ধের সিদ্ধান্ত
প্রকাশঃ 25 Nov, 2016, Friday 10:58 PM || অনলাইন সংস্করণ
h_v_i_t

হোয়াটসঅ্যাপ-ফেসবুকে ভয়েস কল বন্ধের সিদ্ধান্ত

ঢাকা: আন্তর্জাতিক কল টার্মিনেশন রেট বাড়ানোর পাশাপাশি মোবাইল ফোনে ইন্টারনেট ব্যবহার করে অ্যাপস এর মাধ্যমে আন্তর্জাতিক ফোনকলের সুযোগ থাকায় ব্যবসা হারাচ্ছে বিটিআরসির। আন্তর্জাতিক ফোনকলের ব্যবসা ফিরে পেতে মোবাইল ফোনে ক্লাউড প্রযুক্তিতে ভয়েস কল করার সুবিধা নিয়ন্ত্রণের ব্যাপারে বিশ্বের অন্যান্য দেশের সিদ্ধান্তগুলো বিবেচনা করছে বিটিআরসি।
এ ব্যাপারে বিটিআরসির চেয়ারম্যাস শাহজাহান মাহমুদ বলেছেন, শুধুমাত্র আন্তর্জাতিক কল টার্মিনেশন রেট বাড়ানোর আর অবৈধ ভিওআইপির কারণেই যে আন্তর্জাতিক ফোনকলের ব‌্যবসায় বাংলাদেশ মার খাচ্ছে তা নয়। ব্যবহার হারানোর পেছনে ওটিটি কলও দায়ী। ওটিটি বা ক্লাউড বেস কল যেমন ভাইবার, ইমো বা হোয়াটসঅ্যাপের জন্য্ও ব্যবসা হারাচ্ছে। তাই আগামী দুই এক মাসের মধ্যে এ ব্যাপারে একটি সিদ্ধান্তে আসতে চায় বিটিআরসি।
শুক্রবার বিটিআরসি কার্যালয়ে ‘অবৈধ ভিওআইপি ও সমসাময়িক বিষয় নিয়ে’ সংবাদিক সম্মেলনে এক প্রশ্নের উত্তরে বিটিআরসি চেয়ারম্যান এসব কথা বলেন। এ সময় বিটিআরসির ভাইস চেয়ারম্যান আহসান হাবিব খান, কমিশনার ও মহাপরিচালকগণ উপস্থিত ছিলেন। সাংবাদিক সম্মেলনের শুরুতে বিটিআরসি’র চেয়ারম্যান বলেন, সমপ্রতি একটি দৈনিকে ‘অবৈধ ভিওআইপি ব্যবসা বন্ধে ব্যর্থ তারানা হালিম’ শিরোনামে একটি সংবাদ প্রকাশিত হয়। এতে বিটিআরসির সূত্র ব্যবহার করে বিভিন্ন উদ্ধৃতি ব্যবহার করা হয়েছে, যা আমাদের কোনো কর্মকর্তা প্রদান করেননি। এতে ব্যবহূত বক্তব্যের সঙ্গে বিটিআরসির কোনো সংযোগ নেই। আর ভিওআইপি কল বন্ধের বিষয়টি চলমান প্রক্রিয়া। এখানে ব্যর্থতার প্রশ্ন আসে না। ফলে প্রকাশিত সংবাদটি সম্পূর্ণ ভিত্তিহীন।
এরপর সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে বিটিআরসির চেয়ারম্যান বলেন, ২০১৪ সালের শেষের দিকে ইনকামিং কলরেট কমিয়ে ১ দশমিক ৫ সেন্ট করা হয়েছিলো। এর আগে এর রেট ছিলো ৩ সেন্টের ওপরে। কলরেট কমানোর পরে দেশে ইনকামিং কলের সংখ্যা বেড়ে যায় অর্থাত্ বৈধপথে দেশে কল আসতে থাকে বেশি। এমনও দেখা গেছে একদিনে বৈধভাবে ১২৩ মিলিয়ন পর্যন্ত ইনকামিং কল এসেছে। আইজিডব্লিউ যখন এই রেট বাড়িয়ে ২ সেন্ট কররো তখন স্বাভাবিকভাবে অবৈধ পথে কল আসার পরিমাণ বেড়ে যায়। তখন থেকে বৈধপথে কল কমে এখন ৭০ থেকে ৮০ মিলিয়নে এসে দাঁড়িয়েছে। অপরদিকে মোবাইল ফোনে ইন্টারনেট সহজলভ‌্য হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে ভয়েস কল করারমত অ্যাপস যেমন ভাইবার, হোয়াটসঅ্যাপ, ইমো ব্যবহার করে আর্ন্তজাতিক ভয়েস কল করার সুবিধা বেড়েছে। ক্লাউড বেস এসব প্রযুক্তি জনপ্রিয়তা পাচ্ছে। এর সরাসরি প্রভাব পড়ছে বৈধ ভয়েস কলের ওপর। আমাদের সামনে এটি একটি বিরাট সমস্যা।
এসব কল নিয়ন্ত্রণের ব্যাপারে সরকারি কোনো নীতিমালা এখনও প্রণয়ন করা হয়নি। পৃথিবীর অন্যান্য দেশ উদাহরণ নেওয়ার চেষ্টা করছি। কোনো কোনো দেশে এসব প্রযুক্তিতে কল সুবিধা অবৈধ ঘোষণা করেছে। সেসব দেশে এসব পদ্ধতিতে ভয়েস কল নিয়ন্ত্রণ করে শুধুমাত্র ডেটা সরবরাহ করা হচ্ছে। এ ব্যাপারে আমরা নীতিমালা করার চিন্তা করেছি। আগামী দুই-এক মাসের মধ্যে এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত গ্রহণ করব।
অবৈধ ভিওআইপি বন্ধে সরকারের উদে‌্যাগে ঘাটতি থাকার অভিযোগ নিয়ে এক প্রশ্নের জবাবে বিটিআরসি চেয়ারম্যান আরো বলেন, অবৈধ ভিওআইপি কল আগের থেকে অনেক কমিয়েছি, আরও কমে যাবে। তবে এটি সম্পূর্ণ বন্ধ করা সম্ভব না।
অন্যদিকে ডাক ও টেলি যোগাযোগ বিভাগের সচিব ফয়জুর রহমান চৌধুরী বলেছেন, মোবাইল ফোনে সিম ব্যাবহার করে ভিওআইপি করলে এবং তা ধরা পড়লে প্রতি সিমের বিপরীতে ৫০ ডলার করে জরিমানা কার্যকর রয়েছে। জরিমানা একটি চলমান প্রক্রিয়া। এতকিছু করেও অবৈধ ভিওআইপি কল পুরোপুরি বন্ধ করা যায়নি।
তিনি বলেন, রাষ্ট্রায়ত্ত্ব মোবাইল ফোন অপারেটর টেলিটকসহ অন্য মোবাইল ফোন অপারেটর অথবা সংশ্লিষ্ট অন্য কেউ অবৈধ ভিওআইপিতে (ভয়েস ওভার ইন্টারনেট প্রটোকল) জড়িত থাকলে কাউকে ছাড় দেয়া হবে না। সরকার এ বিষয়ে জিরো টলারেন্স নীতি মেনে চলবে।
উল্লেখ্য, দেশে জঙ্গি তত্পরতা বেড়ে যাওয়ার প্রেক্ষাপটে ‘নিরাপত্তার কারণ’ দেখিয়ে গত বছর জানুয়ারিতে সরকার ভাইবার, ট্যাঙ্গো, হোয়াটস অ্যাপসহ কয়েকটি ইনস্ট্যান্ট মেসেজিং ও ভিওআইপি অ্যাপ্লিকেশন বন্ধ করেছিল। তবে কয়েকদিন পর সেগুলো খুলে দেয়া হয়।

Check Also

cu_b

চবির হলে পুলিশের অভিযানে অস্ত্র উদ্ধার:ছাত্রলীগের ৩০ নেতাকর্মী আটক

মাসুম চট্টগ্রাম প্রতিনিধি:চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষের পর শাহ জালাল ও শাহ আমানত ...