Saturday , December 10 2016
সদ্য প্রাপ্ত
Home / Slider / স্বামীকে হত্যার পর থানায় স্ত্রী’র আত্মসমর্পণ!
প্রকাশঃ 07 Oct, 2016, Friday 12:17 AM || অনলাইন সংস্করণ
sitakund-murderer-pic-6-oct

স্বামীকে হত্যার পর থানায় স্ত্রী’র আত্মসমর্পণ!

চট্টগ্রাম প্রতিনিধি:চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ডের খতিজা বেগম (৩২) থানায় হাজির হয়ে পুলিশের কাছে এই বর্ণনা দেন যে, স্বামী প্রতিদিন ‘নেশা করে এসে মারধর করতেন’। এতে অতিষ্ঠ হয়ে পড়েন তিনি। এ কারণে শিল দিয়ে আঘাত করে স্বামীকে হত্যা করেছেন।

সীতাকুণ্ড থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মোজাম্মেল হক জানান, স্বামী লরিচালক জাহাঙ্গীর আলম (৪০) প্রতিদিন নেশা করে বাড়ি ফিরে তাঁকে (খতিজা) অকথ্য ভাষায় গালাগাল ও মারধর করতেন। তিনি ভেবেছিলেন ছেলেরা বড় হচ্ছে, তাই নির্যাতনের মাত্রা কমবে। কিন্তু দিন দিন উল্টো তা বেড়েই চলছে।

গত মঙ্গলবার গভীর রাতে ঘরে ফিরে সন্তানদের সামনে তাঁকে বেদম মারধর করেন জাহাঙ্গীর। নেশাগ্রস্ত অবস্থায় ঘুমিয়ে পড়লে গত বুধবার ভোরের দিকে জাহাঙ্গীরকে মসলা বাটার শিল দিয়ে ঘাড়ে আঘাত করেন তিনি। এতে জাহাঙ্গীর ঘটনাস্থলেই মারা যান। এরপর স্বামীর লাশ তোশক দিয়ে মুড়িয়ে খাটের নিচে রেখে দেন। দুপুরের দিকে দুই সন্তানকে সঙ্গে নিয়ে প্রথমে বার আউলিয়া হাইওয়ে থানায় যান। সেখানে তাঁদের সীতাকুণ্ড থানায় যাওয়ার পরামর্শ দেওয়া হয়। প্রায় ২০ কিলোমিটার দূরের ওই থানায় হেঁটে গিয়ে রাত নয়টার দিকে তিনি পুলিশকে বিষয়টি জানান।

সীতাকুণ্ড থানা সূত্র জানায়, গত বুধবার দিবাগত রাত দেড়টার দিকে সীতাকুণ্ডের ভাটিয়ারী ইউনিয়নের মাদামবিবিরহাট-সংলগ্ন খাদেমপাড়া গ্রামের নেভি রোড এলাকার বাসা থেকে জাহাঙ্গীরের লাশ উদ্ধার করা হয়। ময়নাতদন্তের জন্য লাশ চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে।

পরিদর্শক (তদন্ত) মোজাম্মেল হক বলেন, পারিবারিক কলহের জেরে এ ঘটনা ঘটে বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে। এর পেছনে অন্য কারণ আছে কি না, তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে। তিনি জানান, এ ঘটনায় মামলার প্রক্রিয়া চলছে। দুই ছেলেসহ খতিজা বেগমকে থানা হেফাজতে রাখা হয়েছে।

Check Also

cu_b

চবির হলে পুলিশের অভিযানে অস্ত্র উদ্ধার:ছাত্রলীগের ৩০ নেতাকর্মী আটক

মাসুম চট্টগ্রাম প্রতিনিধি:চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষের পর শাহ জালাল ও শাহ আমানত ...