Saturday , December 10 2016
সদ্য প্রাপ্ত
Home / Slider / সার্ক শীর্ষ সম্মেলনে পাকিস্তান যাচ্ছেন না প্রধানমন্ত্রী
প্রকাশঃ 07 Sep, 2016, Wednesday 6:49 PM || অনলাইন সংস্করণ
Hasina

সার্ক শীর্ষ সম্মেলনে পাকিস্তান যাচ্ছেন না প্রধানমন্ত্রী

ঢাকা: আসন্ন সার্ক শীর্ষ সম্মেলনে যোগ দিতে পাকিস্তানে যাচ্ছেন না প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। আগামী ৮ থেকে ১১ নভেম্বর ইসলামাবাদে ১৯তম সার্ক শীর্ষ সম্মেলনের অনুষ্ঠিত হবে। সংশ্লিষ্ট উচ্চপর্যায়ের একটি সূত্র এ তথ্য জানিয়েছে। সূত্রটি জানায়, ইতোমধ্যেই পাকিস্তানে অনুষ্ঠিত হওয়ার কারণে এবারের সার্ক সম্মেলনে না যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। বাংলাদেশে চলমান মানবতাবিরোধী অপরাধের বিচার প্রক্রিয়া ও কয়েকজন অপরাধীর ফাঁসির দন্ড কার্যকর হবার পর পাকিস্তানের অযাচিত প্রতিক্রিয়া আর হস্তক্ষেপের জন্যই তিনি এবার সার্ক সম্মেলনে না যাবার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। যুদ্ধাপরাধের বিচার ইস্যুতে বাংলাদেশের অভ্যন্তরীণ বিষয়ে বার বার হস্তক্ষেপ করছে পাকিস্তান। বাংলাদেশ এর প্রতিবাদ জানানোর পরও পাকিস্তান অবস্থান বদলায়নি। এ অবস্থায় দুদেশের মধ্যে সম্পর্কের কোনো দৃশ্যত অগ্রগতি হয়নি। এদিকে প্রধানমন্ত্রী না গেলেও এবারের সার্ক সম্মেলনে রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ বাংলাদেশের প্রতিনিধিত্ব করতে পারেন বলেও উচ্চ পর্যায়ের ওই সূত্রটি জানিয়েছে। তবে সম্মেলনের এখনও ২ মাস সময় আছে। এর আগেই সিদ্ধান্ত হবে বলেও সূত্রটি নিশ্চিত করেছে।

প্রসঙ্গত ১৯৭১ সালের মুক্তিযুদ্ধকালীন মানবতাবিরোধী অপরাধের বিচার প্রক্রিয়া শুরুর পর গত ৫ বছর ধরে ঢাকা ও ইসলামাবাদের মধ্যে কূটনৈতিক ও রাজনৈতিক সম্পর্ক শীতল পর্যায়ে রয়েছে। মন্ত্রী বা ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা পর্যায়ে কোনো সফর বিনিময় হয়নি। সম্প্রতি ইসলামাবাদে অনুষ্ঠিত সার্ক স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ও অর্থমন্ত্রীদের বৈঠকে বাংলাদেশের সংশ্লিষ্ট মন্ত্রীগণ যাননি। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীদের বৈঠকে হাইকমিশনার ও অর্থমন্ত্রীদের বৈঠকে অর্থ প্রতিমন্ত্রী বাংলাদেশের প্রতিনিধিত্ব করেন। সর্বশেষ দীর্ঘ ৬ বছর পর কয়েকবার পিছিয়ে গত ১ সেপ্টেম্বর ঢাকায় দুদেশের পররাষ্ট্র সচিবদের বৈঠকের দিন নির্ধারিত হয়। ২৪ ঘন্টা আগে পাকিস্তানের পররাষ্ট্র সচিব তার ঢাকা সফর বাতিল করেন।

সর্বশেষ মীর কাসেম আলী, এর আগে মতিউর রহমান নিজামী, আলী আহসান মো. মুজাহিদ, সালাহউদ্দিন কাদের চৌধুরী, কামারুজ্জামান, কাদের মোল্লার মত যুদ্ধাপরাধীদের ফাঁসির দ- কার্যকর হবার পর প্রতিক্রিয়া দেখায় পাকিস্তান। এ নিয়ে ঢাকা ও ইসলামাবাদে দফায় দফায় তলব ও পাল্টা তলব চলে। ঢাকায় পাকিস্তান হাইকমিশনের একাধিক কর্মকর্তা নানা অপরাধে জড়িয়ে হাতে-নাতে ধরা পড়েন। সরকার আইনি ও কূটনীতিক পদক্ষেপ নেয়। পাল্টা হিসেবে ইসলামাবাদে একাধিক বাংলাদেশি কূটনীতিককে নিরাপত্তা হুমকিসহ নানা হয়রানির শিকার হতে হয়। এ প্রেক্ষাপটে পাকিস্তান বরাবরই বৈরি ও অসহযোগিতামূলক আচরণ করে আসছে।

ওই পরিস্থিতিতে প্রধানমন্ত্রী পাকিস্তানে না যাবার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। এ সিদ্ধান্ত সহসাই আনুষ্ঠানিকভাবে জানানো হবে। অবশ্য সূত্রটি আরও জানিয়েছে, সার্ক সম্মেলনে যোগ দেয়ার ব্যাপারে প্রধানমন্ত্রীর বিষয়ে কয়েক মাস আগে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় গণমাধ্যমকে সবুজ সংকেত দিয়েছিল। অবশ্য এরপর থেকে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ও সব ধরনের প্রস্তুতি শুরু করে। নিয়মানুযায়ী সার্কের সদস্য দেশগুলোর রাষ্ট্র ও সরকার প্রধানদের সম্মতির ভিত্তিতেই সার্ক শীর্ষ সম্মেলনের দিন তারিখ নির্ধারিত হয়ে থাকে।

Check Also

dr

শিরোপা জয়ে রাজশাহীর প্রয়োজন ১৬০ রান

র্স্পোর্টস ডেস্ক: বিপিএলের ফাইনালের মহারণে টস হেরে আগে ব্যাট করা ঢাকা ডায়নামাইটস নির্ধারিত ২০ ওভারে ...