Saturday , December 3 2016
সদ্য প্রাপ্ত
Home / Slider / “মোর সব সম্পত্তি লইয়া যান খালি পোলাডারে ফিরাইয়া দ্যান”
প্রকাশঃ 19 Oct, 2016, Wednesday 9:06 PM || অনলাইন সংস্করণ
salam

“মোর সব সম্পত্তি লইয়া যান খালি পোলাডারে ফিরাইয়া দ্যান”

*অপহৃতা যুবকের সন্ধান মেলেনি *প্রতারকদের খপ্পরে থানার ওসি*

কল্যান কুমার চন্দ, বরিশাল প্রতিনিধি: “মোর সব সম্পত্তি আমনেরা লইয়া যান, খালি মোর পোলাডারে আমনেরা ফিরাইয়া দ্যান। মুই জীবনেও কোনদিন জমির দাবি করমুনা, খালি মোর বাবায় বাইচ্চা থাকলেই হইবে”। এভাবেই বিলাপ করে কথাগুলো বলছিলেন, অপহৃত যুবক সালাম মোল্লার বৃদ্ধ পিতা মতিন মোল্লা।

ঘটনাটি জেলার বাবুগঞ্জ উপজেলার বীরশ্রেষ্ঠ জাহাঙ্গীর নগর ইউনিয়নের চরফতেপুর গ্রামের। বুধবার দুপুরে গৌরনদী প্রেসক্লাবে হাজির হয়ে একভাবেই বিলাপ করে বলছিলেন, অপহৃত যুবকের বৃদ্ধ পিতা মতিন মোল্লা। একইভাবে বিলাপ করে বলেন, সালামের বৃদ্ধ মা সেতারা বেগম, স্ত্রী হাজেরা বেগম ও বোন সুমী বেগম। সালামের ৫ বছরের অবুঝ শিশু জান্নাত ও ২ বছরের পুত্র সোলায়মান শুধু বাবা বাবা বলের কান্না জুড়ে দেন।

তাদের সকলের আহাজারিতে প্রেসক্লাবে উপস্থিত সাংবাদিকরা স্তব্দ হয়ে যান। সূত্রমতে, জমিজমা সংক্রান্ত বিরোধের জেরধরে সালাম মোল্লাকে প্রতিপক্ষের দেয়া গুমের হুমকির নয়দিন পর গত ১৩ অক্টোবর গভীর রাতে ঘরের বেড়া কেটে ঘুমন্ত যুবক সালামকে (২৮) অপহরনের পর অদ্যবর্ধি তার কোন সন্ধান মেলেনি।

নিখোঁজ যুবকের ভাই জামাল মোল্লা অভিযোগ করেন, তিনি বাদি হয়ে থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করার পরেও পুলিশ অদ্যবর্ধি তাদের অভিযোগ মামলা হিসেবে রুজু করেননি। জামাল আরও অভিযোগ করেন, তার ভাইয়ের নিখোঁজের বিষয়টি নিয়ে বিভিন্ন গণমাধ্যমে সংবাদ প্রকাশের পর বাবুগঞ্জ থানার ওসি গত রবিবার তাদের ফোন দিয়ে বলেন, সালামকে ফরিদপুরের বোয়ালমারি এলাকায় পাওয়া গেছে। সে একটি মোবাইল নাম্বার দিয়ে যোগাযোগ করতে বলেন।

ওসির দেয়া মোবাইল নাম্বারে যোগাযোগ করা হলে অপরপ্রান্ত থেকে একব্যক্তি বলেন, সালামকে মুমুর্ষ অবস্থায় উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। তাকে বাঁচাতে হলে জরুরি ভিত্তিতে রক্ত দেয়া প্রয়োজন। এরজন্য দ্রুত বিকাশের মাধ্যমে ৫ হাজার টাকা দাবি করা হয়। জামাল বলেন, ভাইকে (সালাম) বাঁচাতে দ্রুত ওসির দেয়া মোবাইল (০১৯৯৩-৮৪৮৬১৩) নাম্বারে বিকাশ করে ৫ হাজার ১’শ টাকা পাঠানো হয়। টাকা পাঠানোর পর থেকে ওই নাম্বারটি বন্ধ পাওয়া যায়।

জামাল মোল্লা জানান, কর্মের সুবাধে তারা ঢাকায় অবস্থান করায় একই বংশের প্রভাবশালী আব্দুস ছত্তার মোল্লা, আফসার উদ্দিন ও ছিদ্দিক মোল্লা গংদের সাথে তাদের পৈত্রিক সূত্রে পাওয়া জমিজমা নিয়ে আদালতে চলমান মামলা দেখাশুনা করেন তার সহদর সালাম মোল্লা। জমিজমার বিরোধ মীমাংসায় স্থানীয়ভাবে গত ৫ অক্টোবর আগরপুর পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রে সালিশ বৈঠক বসে।

ওইদিন বিরোধ মীমাংসা না হওয়ায় প্রতিপক্ষের লোকজনে সালামকে গুম করার হুমকি দেয়। এরইমধ্যে গত ১৩ অক্টোবর বাড়িতে কেউ না থাকায় সালাম প্রতিদিনের ন্যায় রাতের খাবার খেয়ে ঘুমিয়ে পরেন। ওইদিন রাতের কোন এক সময়ে অজ্ঞাতনামা দুর্বৃত্তরা বসত ঘরের টিনের বেড়া কেটে সালামকে অপহরন করে নিয়ে যায়। সেই থেকে নিখোঁজ সালামের কোন সন্ধান মেলেনি।

এ ব্যাপারে বাবুগঞ্জ থানার ওসি আব্দুস সালাম জানান, যাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ করা হয়েছে তাদের বিষয়ে তদন্ত চলছে। তিনি আরও বলেন, গত রবিবার একব্যক্তি মোবাইল ফোনের মাধ্যমে বোয়ালিয়া এলাকায় নিখোঁজ সালামকে গুরুতর অবস্থায় পাওয়া গেছে বলে আমাকে জানিয়েছেন। এরপর সালামের ভাইয়ের কাছে ওই নাম্বারটি দিয়ে যোগাযোগ করতে বলা হয়। তিনি আরও বলেন, বিকাশের মাধ্যমে টাকা পাঠানোর ওই নাম্বারটি সম্পর্কে খোঁজখবর নিয়ে জানা যায় এটা একটি প্রতারক চক্রের নাম্বার। পরবর্তীতে ওই নাম্বারটি বন্ধ করিয়ে দেয়া হয়েছে বলেও তিনি (ওসি) উল্লেখ করেন।

Check Also

dhaka

তামিমদের ১৩৪ রান টার্গেটে ব্যাট করছে সাকিবের ঢাকা

স্পোর্টস ডেস্কঃ বিপিএলের হাইভোল্টেজ ম্যাচে মাঠের লড়াইয়ে নামে পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষে থাকা ঢাকা ডায়নামাইটস এবং ...