Thursday , December 8 2016
Home / Slider / দাউদ মার্চেন্ট মুম্বাই পুলিশের হাতে
প্রকাশঃ 12 Nov, 2016, Saturday 10:08 AM || অনলাইন সংস্করণ
dawot

দাউদ মার্চেন্ট মুম্বাই পুলিশের হাতে

ঢাকাঃ বাংলাদেশে দীর্ঘ দিন বন্দী থাকা ভারতের সন্ত্রাসী দাউদ মার্চেন্ট মুব্বাই পুলিশ হেফাজতে আছেন। বৃহস্পতিবার ভারতের একটি পত্রিকার অনলাইন সংস্করণের বলা হয়, দাউদ মার্চেন্টকে বাংলাদেশ থেকে ভারতে আনা হয়েছে।

মুম্বাই ক্রাইম ব্রাঞ্চের যুগ্ম কমিশনার সঞ্জয় সাক্সেনার বরাত দিয়ে ভারতের ওই পত্রিকার প্রতিবেদনে বলা হয়, দাউদ মার্চেন্টকে বুধবার মেঘালয় সীমান্ত দিয়ে হস্তান্তর করা হয়। বৃহস্পতিবার তাকে মুম্বাই নিয়ে আসে পুলিশ।

ভারতীয় সঙ্গীত ব্যক্তিত্ব গুলশান কুমার হত্যা মামলার আসামি বহুল আলোচিত মাফিয়া ডন দাউদ ইব্রাহিমের ভাতিজা আবদুর রউফ দাউদ মার্চেন্ট গত রোববার বিকেলে ঢাকার কেরানীগঞ্জ কারাগার থেকে মুক্তি পেয়েছেন। মুক্তির পর থেকেই মার্চেন্টের অবস্থান সম্পর্কে সুস্পষ্ট কোনো তথ্য পাওয়া যাচ্ছে না।

ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারের সিনিয়র জেল সুপার জাহাঙ্গীর কবির জানান, দাউদ মার্চেন্টের মুক্তির আদেশের কাগজপত্র যাচাই-বাছাই শেষে রোববার বিকেলে আবদুর রউফ ওরফে দাউদ মার্চেন্টকে ঢাকার কেরানীগঞ্জ কারাগার থেকে মুক্তি দেয়া হয়।

এরপর বুধবার ভারতীয় গোয়েন্দা কর্মকর্তারা মেঘালয়ে যান। সেখান থেকেই তাকে নিয়ে আসা হয় বলে জানিয়েছে ভারতীয় সংবাদমাধ্যম দ্য হিন্দু।

প্রসঙ্গত, ভারতের মুম্বাইয়ের সঙ্গীত প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান টি-সিরিজের মালিক গুলশান কুমারকে ১৯৯৭ সালের ১২ আগস্ট আন্ধেরি এলাকার একটি মন্দির থেকে বের হওয়ার সময় গুলি চালিয়ে হত্যা করা হয়। এ হত্যা মামলায় সন্দেহভাজন ভাড়াটে খুনি হিসেবে দাউদ মার্চেন্টকে গ্রেফতার করে ভারতীয় আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। ওই মামলায় ২০০২ সালে ভারতীয় আদালত দাউদকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দেয়। ওই রায়ের বিরুদ্ধে আপিল করেন দাউদ। কারাগারে থাকা অবস্থায়ই পারিবারিক প্রয়োজনে ২০০৯ সালে ১৪ দিনের প্যারোলে মুক্তি পান মার্চেন্ট। মুক্তি পেয়েই ব্রাহ্মণবাড়িয়া সীমান্ত দিয়ে বাংলাদেশে প্রবেশ করেন। ২০০৯ সালের ২৭ মে ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা সদরের একটি বাড়ি থেকে আবদুর রউফ দাউদ মার্চেন্ট আর তার আশ্রয়দাতা ও ঘনিষ্ঠ সহযোগী জাহিদ শেখকে ওই বছরের ২৯ মে গ্রেফতার করে। দাউদ মার্চেন্ট ভারতের ‘মোস্টওয়ান্টেড’ অপরাধী। দাউদ মার্চেন্ট ও জাহিদ শেখকে কয়েক দফায় রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করে গোয়েন্দা সংস্থাগুলো। এ দুইজনের বিরুদ্ধে বাংলাদেশে অনুপ্রবেশের দায়ে মামলা হয়।

Check Also

brt_bg2_654847924

যাত্রী-সম্পদের ক্ষতিপূরণের বিধান রেখে বিআরটি বিল পাস

বিশেষ প্রতিনিধি: বিআরটিতে ভ্রমণকারী যাত্রীদের বাধ্যতামূলক জীবন বীমা ও কোনো দুর্ঘটনায় যাত্রী ছাড়া অপর কোনো ...