Saturday , December 10 2016
সদ্য প্রাপ্ত
Home / Slider / টাইমস অব ইন্ডিয়ার বিশ্লেষণ: ‘জয় বাংলা’ তুমি কার, বাংলাদেশের না ভারতের ?
প্রকাশঃ 30 Aug, 2016, Tuesday 4:25 PM || অনলাইন সংস্করণ
Joy-Bangla

টাইমস অব ইন্ডিয়ার বিশ্লেষণ: ‘জয় বাংলা’ তুমি কার, বাংলাদেশের না ভারতের ?

প্রজন্ম ডেস্ক: ভারতের পশ্চিমবঙ্গের নাম পরিবর্তন করা হয়েছে। একই রাজ্যের নাম তিন ভাষায় তিন নামে ডাকা হবে। ইংরেজিতে বেঙ্গল, হিন্দিতে বাঙ্গাল ও বাংলায় বাংলা। নাম পরিবর্তনের পরে বাংলাদেশ ও ভারতে মিশ্র প্রতিক্রিয়া দেখা গেছে।

পশ্চিমবঙ্গের বামপন্থিরা নাম পরিবর্তনের বিপক্ষে ছিলেন। নাম বদলে স্বাগতম জানালেও অনেকে আবার দ্বিমত পোষণ করে অসন্তোষ প্রকাশ করেছেন। পশ্চিমবঙ্গের নাম পরিবর্তনের ফলে বাংলাদেশের জাতীয় সঙ্গীতে বিশৃঙ্খলার আশঙ্কা করা হচ্ছে।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের নৃতত্ত্ব বিভাগের শিক্ষিকা রাশিদা রওনক খানের মতে, পশ্চিমবঙ্গের নাম পরিবর্তন করা হলেও নতুন নামের মধ্যে বাংলা রয়েছে। এই বাংলা থাকায় বাংলাদেশের জাতীয় সঙ্গীতের সমস্যা তৈরি হবে। বাংলা হচ্ছে একটি ভাষার নাম। অন্য দেশের মানুষরা দেশের নাম ও ভাষার নামের মধ্যে ঘুলিয়ে ফেলবে। বঙ্গদেশ পশ্চিমবঙ্গের বিকল্প নাম হতে পারত বলে মনে করেন এই শিক্ষিকা।

রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর বাংলাদেশের জাতীয় সঙ্গীত লিখেছেন। ১৯০৫ সালে ব্রিটিশরা প্রথমবারের মতো বাংলা বিভাজনের সময় এটি রচিত হয়। প্রথম ১০ লাইন বাংলাদেশের জাতীয় সঙ্গীত স্থান করে নিয়েছে বাংলাদেশের সংবিধানে। ১৯৭১ সালে বাংলাদেশের স্বাধীনতার সময় জাতীয় সঙ্গীত পরিচিতি পায়।

পশ্চিমবঙ্গের নাম পরিবর্তন করার প্রস্তাবনা থেকেই বাংলাদেশের বিভিন্ন রাজনৈতিক প্রতিক্রিয়া আসতে শুরু করে। অনেকে মনে করছেন ভারতের রাজ্যের নামের কারণে বাংলাদেশের জাতীয় সঙ্গীত ‘আমার সোনার বাংলা’ বলতে ভারতের বাংলাকে বুঝাবে। নাম পরিবর্তনের মধ্য দিয়ে রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের বিরোধী রাজনীতি শুরু হতে পারে।

বাংলাদেশের চিত্রকর মোস্তাফা খালিদ পলাশের মতে, পশ্চিমবঙ্গের নামের পরিবর্তনের ফলে দ্বিধাদ্বন্দ্ব শুরু হবে দুই দেশে। ‘আমার সোনার বাংলা’ কাদের হবে। এই সিদ্ধান্তে অবশ্যই বাংলাদেশের জাতীয় সঙ্গীতের অধিকার খর্ব হবে। যখন আমরা ‘বাংলা’ শব্দটি ব্যবহার করি। তখন আমাদের অনুভূতিতে দেশের নামের অংশ মনে হয়।

‘বাংলা’র পরে ‘দেশ’ প্রত্যয় যুক্ত হলেই বাংলাদেশ হয় যা আমাদের দেশের নাম। একই রাজ্যের নাম তিনটি ভাষায় লিখার প্রয়োজন হয় না। আমি আর পৃথিবীর কোনো দেশে এমনটি শুনিনি। এখন এই পরিবর্তনের ফলে বিশৃঙ্খলা তৈরি হবে। আমরা যখন ‘জয় বাংলা’ বলি তাহলে কোনটি বুঝাবে প্রশ্ন রাখেন পলাশ।

পশ্চিমবঙ্গের নাম বদল করার কারণে জাতীয় সঙ্গীত নিয়ে কোনো সংশয় বা বিশৃঙ্খালা তৈরি হবে না বলে মনে করেন। তিনি বলেন, পশ্চিমবঙ্গের নামের পরিবর্তনে জাতীয় সঙ্গীতে কোনো সমস্যা হবে না। আমি তাদের নামের পরিবর্তনকে স্বাগত জানাই। তবে পরিবর্তিত নামটি যদি ‘বঙ্গ’ হতো তাহলে আরো ভালো হতো।

লেখক ফারাহ গুজনবীর মতে, দুই দেশের সীমান্তের ঐতিহাসিকতাকে না মেনে রাজনৈতিক বিবেচনায় পশ্চিমবঙ্গের নাম বদল করে ‘বাংলা’ করা হয়েছে। এটি আদৌ যথাযথ সিদ্ধান্ত নয়। ভাষা এক হওয়ায় বাংলাদেশ ‘বাংলা’কে নিজেদের দাবি করতে পারবে। এতে বাংলা নিয়ে সংকট তৈরি হতে পারে।

অভিনেত্রী সোহানা সাবাও পশ্চিমবঙ্গের নাম পরিবর্তনে স্বাগতম জানিয়েছেন। তবে তিনি পরিবর্তিত নাম ‘বাংলা’ রাখায় অসন্তোষ প্রকাশ করেছেন। তারন ভাষায়, ‘বেঙ্গল’ অনেক সুন্দর নাম। আমি বাংলা আশা করিনি কারণ এটি বিশৃঙ্খলা তৈরি করবে বলে মনে করেন তিনি। সূত্র : টাইমস অব ইন্ডিয়া।

Check Also

dr

শিরোপা জয়ে রাজশাহীর প্রয়োজন ১৬০ রান

র্স্পোর্টস ডেস্ক: বিপিএলের ফাইনালের মহারণে টস হেরে আগে ব্যাট করা ঢাকা ডায়নামাইটস নির্ধারিত ২০ ওভারে ...