Saturday , December 10 2016
সদ্য প্রাপ্ত
Home / সারা বাংলা / চট্টগ্রাম বিভাগ / চবির ছাত্রলীগ সভাপতি ও সহকারী প্রক্টরসহ ১০ জনের বিরুদ্ধে হত্যা মামলা দিয়াজ পরিবারের
প্রকাশঃ 24 Nov, 2016, Thursday 7:06 PM || অনলাইন সংস্করণ
diaj

চবির ছাত্রলীগ সভাপতি ও সহকারী প্রক্টরসহ ১০ জনের বিরুদ্ধে হত্যা মামলা দিয়াজ পরিবারের

ওমর ফারুক মাসুম, চট্টগ্রাম প্রতিনিধঃ ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সহসম্পাদক দিয়াজ ইরফান চৌধুরীকে হত্যার অভিযোগে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের সহকারী প্রক্টর আনোয়ার হোসেন, বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি আলমগীর টিপুসহ ছাত্রলীগের নয় নেতা-কর্মীর বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে।

আজ বৃহস্পতিবার দুপুরে নিহত দিয়াজের মা জাহেদা আমিন চৌধুরী বাদী হয়ে চট্টগ্রামের জ্যেষ্ঠ বিচারিক হাকিম শিপলু কুমার দের আদালতে মামলাটি করেন। আদালত পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগকে (সিআইডি) এক মাসের মধ্যে প্রতিবেদন দিতে নির্দেশ দেন।

চট্টগ্রাম জেলা কোর্ট পরিদর্শক এ এইচ এম মশিউর রহমান বলেন, ১০ জনকে আসামি করে হত্যা মামলা হয়েছে। আদালত সিআইডিকে তদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন।

নিহত দিয়াজের বড় বোন জুবাইদা সরওয়ার চৌধুরী জানান, তাঁর ভাইকে হত্যার অভিযোগে করা মামলায় চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের সহকারী প্রক্টর আনোয়ার হোসেন, বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি আলমগীর টিপু, সাবেক সাধারণ সম্পাদক জামশেদুল আলম চৌধুরী, ছাত্রলীগ নেতা রাশেদুল আলম, আবু তোরাব, মিনহাজুর রহমান, মো. আরমান, আরিফুল হক, আবদুল মান্নান ও মনসুর আলমকে আসামি করা হয়। তাঁর দাবি, তাঁরাই তাঁর ভাইকে হত্যা করেছেন।

অভিযোগ প্রসঙ্গে জানতে আজ দুপুরে সহকারী প্রক্টর আনোয়ার হোসেনের মুঠোফোনে ফোন দিলে তিনি ধরেননি। তবে ছাত্রলীগ চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় শাখার সভাপতি আলমগীর টিপু বলেন, ‘এটি হত্যা নয়। আত্মহত্যা। দিয়াজের পরিবার কেন মামলা করেছে বুঝতে পারছি না। আমি জড়িত নই। একটি মেয়ের সঙ্গে সম্পর্কের জেরে দিয়াজ আত্মহত্যা করেছে বলে শুনেছি।’

গত রোববার রাতে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসের ২ নম্বর গেট এলাকার নিজ বাসা থেকে দিয়াজের ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। এর ২২ দিন আগে দিয়াজসহ বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের চার নেতার বাসায় তাণ্ডব চালানো হয়। ৯৫ কোটি টাকার দরপত্রের ভাগ-বাঁটোয়ারাকে কেন্দ্র করে বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সভাপতির অনুসারী নেতা-কর্মীরা ওই হামলা চালান বলে অভিযোগ ওঠে। চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে ৯৫ কোটি টাকা ব্যয়ে দুটি ভবন নির্মাণের দরপত্রকে কেন্দ্র করে ছাত্রলীগের দুই পক্ষের মধ্যে আড়াই মাস ধরে একের পর এক পাল্টাপাল্টি হামলা ও সংঘর্ষের ঘটনা ঘটছে। এই সময়ের মধ্যে অন্তত ছয়বার রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষ হয়েছে। এতে ১০ জন আহত হয়েছেন।

দিয়াজ ইরফানকে হত্যা করা হয়েছে—এমন আলামত ময়নাতদন্ত প্রতিবেদনে মেলেনি, তিনি আত্মহত্যা করেছেন বলে গতকাল বুধবার মত দিয়েছেন চিকিৎসকেরা। লাশের ময়নাতদন্ত প্রতিবেদন পেয়ে গতকাল সাংবাদিকদের এ কথা জানায় পুলিশ। তবে এ প্রতিবেদন প্রত্যাখ্যান করেছে দিয়াজের পরিবারসহ চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের একটি অংশ। তারা বলছে, লাশের সুরতহাল প্রতিবেদনের সঙ্গে ময়নাতদন্ত প্রতিবেদনের কোনো মিল নেই।

চট্টগ্রামের হাটহাজারী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) বেলাল উদ্দিন মো. জাহাঙ্গীর বলেন, ‘দিয়াজ আত্মহত্যা করেছেন বলে ময়নাতদন্ত প্রতিবেদনে বলা হয়েছে। তাঁর শরীরে যে চিহ্নগুলো রয়েছে, তা আত্মহত্যার কারণে হয়েছে।

Check Also

1-jpg

চট্টগ্রামে ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযানে দুই রেষ্টুরেন্ট কে ৭০০০০ টাকা জরিমানা

মাসুম, চট্টগ্রাম: চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসনের নিয়মিত অভিযানের অংশ হিসাবে মেট্রোপলিটন এলাকায় ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযান পরিচালিত ...