Tuesday , December 6 2016
Home / Slider / আজ থেকে ২২ দিন ইলিশ ধরা নিষিদ্ধ
প্রকাশঃ 12 Oct, 2016, Wednesday 7:42 AM || অনলাইন সংস্করণ
elish201610

আজ থেকে ২২ দিন ইলিশ ধরা নিষিদ্ধ

প্রজস্ম ডেস্ক: ইলিশের স্বাভাবিক উৎপাদন বাড়াতে আজ থেকে শুরু হচ্ছে ২২ দিনব্যাপী ‘মা-ইলিশ সংরক্ষণ অভিযান’। এ সময়ে দেশের সাত হাজার বর্গকিলোমিটার এলাকায় ইলিশ আহরণ নিষিদ্ধ করেছে সরকার।

পূর্ব ঘোষণা অনুযায়ী,  প্রধান প্রজনন মৌসুমে ‘মা-ইলিশ সংরক্ষণ অভিযান’-এর লক্ষ্যে প্রায় সাত হাজার বর্গকিলোমিটার এলাকাসহ ২৭ জেলার ইলিশ প্রজনন ক্ষেত্রগুলোয় ২২ দিন ইলিশ ধরা নিষিদ্ধ করেছে সরকার। আজ থেকে আগামী ২ নভেম্বর পর্যন্ত ইলিশ ধরা নিষিদ্ধ করে একটি প্রজ্ঞাপনও জারি করা হয়েছে।

ইলিশের প্রজননক্ষেত্র হিসেবে চিহ্নিত সাত হাজার বর্গকিলোমিটার এলাকার সীমানা হচ্ছে— চট্টগ্রামের মীরসরাই উপজেলার শাহের খালী থেকে হাইতকান্দী পয়েন্ট; ভোলার তজুমুদ্দিন উপজেলার উত্তর তজুমুদ্দিন থেকে পশ্চিম সৈয়দ আওলিয়া পয়েন্ট; পটুয়াখালীর কলাপাড়া উপজেলার লতা চাপালি পয়েন্ট ও কক্সবাজারের কুতুবদিয়া উপজেলার উত্তর কুতুবদিয়া থেকে গ্লারমারা পয়েন্ট।

জানা গেছে, প্রতি বছর দেশের নদীগুলো থেকে প্রায় ৩৮ কোটি জাটকা মাছ ধরা হয়। এছাড়া প্রজনন মৌসুমে প্রায় ১ কোটি ৬১ লাখ মা-মাছ ধরা হয়। এসব মাছ অসময়ে না ধরে স্বাভাবিক বৃদ্ধির সুযোগ দিলে ইলিশের উত্পাদন ৫৫ শতাংশ বাড়ানো সম্ভব।

বাংলাদেশ মৎস্য গবেষণা ইনস্টিটিউটের (বিএফআরআই) ‘জাটকা ও ইলিশের প্রাচুর্যতা ও বিচরণক্ষেত্র রক্ষা এবং জেলেদের বিকল্প আয়ের উপায় নির্ধারণ’-বিষয়ক একটি গবেষণায় দেখা গেছে, দেশে প্রতি বছর গড়ে প্রায় ৩ লাখ ৯০ হাজার টন ইলিশ মাছ ধরা পড়ছে। এর বাইরে অপরিকল্পিতভাবে জাটকা মাছ ধরায় সেগুলো বড় হতে পারছে না। আবার প্রজনন মৌসুমে মা-মাছ ধরার মাধ্যমে ডিম পাড়ার সুযোগ দেয়া হচ্ছে না। এ দুয়ের প্রভাবে ইলিশ মাছের উৎপাদন প্রবৃদ্ধি শ্লথ হয়ে পড়েছে।

এজন্য মা-মাছ রক্ষায় সব ধরনের উদ্যোগ নেয়া হবে বলে জানান মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব মো. আনিছুর রহমান। তিনি বলেন, মাছ রক্ষা ও জাটকা নিধন প্রতিরোধ না করলে ইলিশ মাছের প্রাপ্যতায় অনিশ্চয়তা সৃষ্টি হতে পারে। এজন্য ইলিশ প্রজননক্ষেত্র ছাড়াও আগামী ২২ দিন সারা দেশে ইলিশ আহরণ, বিপণন, ক্রয়-বিক্রয়, পরিবহন, মজুদ ও বিনিময় নিষিদ্ধ-সংক্রান্ত কার্যক্রম বাস্তবায়ন করা হবে। এজন্য সারা দেশের মাছঘাট, মৎস্য আড়ত, হাটবাজার ও চেইনশপে ব্যাপক অভিযান চালানো হবে। এ কার্যক্রম বাস্তবায়নে মন্ত্রণালয়সহ মৎস্য অধিদপ্তর, নৌবাহিনী, বিমানবাহিনী, কোস্টগার্ড, পুলিশ, নৌ-পুলিশ, র্যাব, বিজিবিসহ সংশ্লিষ্ট জেলা-উপজেলা প্রশাসন একযোগে কাজ করবে।

সরকারি নিষেধাজ্ঞার আওতায় থাকা ২৭টি জেলা হচ্ছে— চাঁদপুর, লক্ষ্মীপুর, নোয়াখালী, ফেনী, চট্টগ্রাম, কক্সবাজার, বরিশাল, ভোলা, পটুয়াখালী, বরগুনা, পিরোজপুর, ঝালকাঠি, বাগেরহাট, শরীয়তপুর, ব্রাহ্মণবাড়িয়া, ঢাকা, মাদারীপুর, ফরিদপুর, রাজবাড়ী, জামালপুর, নারায়ণগঞ্জ, নরসিংদী, মানিকগঞ্জ, মুন্সীগঞ্জ, খুলনা, কুষ্টিয়া ও রাজশাহী। এসব জেলার সব নদ-নদী ছাড়াও দেশের সমুদ্র উপকূল ও মোহনায়ও এ ২২ দিন ইলিশ ধরা বন্ধ থাকবে।

Check Also

bb

রিজার্ভ চুরির তদন্তের তথ্য দেয়া হবে ফিলিপাইনকে, রয়টার্সকে আইনমন্ত্রী

অনলাইন ডেস্ক: বাংলাদেশ ব্যাংকের রিজার্ভ চুরির তদন্ত প্রতিবেদনের তথ্য ফিলিপাইনকে দেয়া হবে বলে জানিয়েছেন আইনমন্ত্রী আনিসুল ...